1. darilymukitdak@gmail.com : Mukti TV HD : Mukti TV HD
  2. info@muktitv24.com : muktitv :
  3. banglahost.net@gmail.com : rahad :
বুধবার, ০১ ফেব্রুয়ারী ২০২৩, ১২:১০ অপরাহ্ন

ইউ,এন,ওর আদেশ অমান্য করে চলছে তিন ফসলি জমিতে পুকুর খনন

মোঃ আব্দুল হান্নান,নাসিরনগর,ব্রাহ্মণবাড়িয়া
  • Update Time : সোমবার, ৯ জানুয়ারী, ২০২৩
  • ১৯ Time View

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও)র নির্দেশ অমান্য করে উপজেলার পূর্বভাগ ইউনিয়নের কদমতলী গ্রামে চলছে পুকুর খনন। ফলে হুমকির মূখে পড়েছে ওই এলাকার ১২০ বিঘা তিন ফসলি জমি। বিষয়টি নিয়ে গত ২৮ ডিসেম্বর উপজেলা প্রশাসন বারাবর লিখিত অভিযোগ করেন স্থানীয় কৃষক শামিম আহম্মেদ। স্থানীয়রা জানায় নিয়মনীতি উপেক্ষা করে পুকুর খননে ফসলি জমির শ্রেণি পরিবর্তন এবং খাদ্যশস্য উৎপাদন কমে যাওয়ার আশঙ্কা করছেন তারা।
স্থানীয়দের সাথে কথা বলে জানা যায়, উপজেলার পূর্বভাগ ইউনিয়নের কদমতলী গ্রামের শফিকুল ও রফিকুল মিলে তিন ফসলি ধানি জমির মাঝখানে মাঠি কাটার যন্ত্র (ভেকু)দ্বারা পুকুর খনন শুরু করে। তাদের এ পুকুর খনন দেখে আশেপাশের জমির কৃষকরা বাধাঁ দেয়। এতে তারা কোন কর্ণপাত করেননি। পরে স্থানীয় কৃষক শামিম আহম্মেদ বিষয়টি নিয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বারাবরে লিখিত অভিযোগ করেন। অভিযোগের পর রাতের আধাঁরে পুকুর খননের কাজ চালিয়ে যাচ্ছে।
কৃষক সোহাগ মিয়া জানান,এ জমিগুলোতে ভালো ফসল হয়। বছরে তিনবার ফসল ঘরে তোলা যায়। পুকুর খননের ফলে আমাদের সকলের জমি উৎপাদন কমে যাবে। তাছাড়া সেচ কাজও বন্ধ হয়ে হয়ে যাবে।
পূর্বভাগ ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আক্তার মিয়া জানান, বিষয়টি আমি কথা বলছি। সবার সাথে কথা বলে কৃষি জমির যাতে সমস্যা না হয় চেষ্টা করছি। জমিগুলোত ভালো ফসল হয়।
ইউনিয়ন উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তা আল-আমীন বলেন, প্রকৃতপক্ষে এখানে যে সব জমিতে পুকুর খনন করা হচ্ছে তা সবই উর্বর ফসলি জমি। এখানে জমিগুলোতে বোরো,আমন, সরিষারসহ তিনবার আবাদ হয়ে থাকে। অপরিকল্পিতভাবে পুকুর খননের কারণে আশেপাশে জমিগুলোতে সেচকাজ বন্ধ হয়ে যাবে।শামীমের অভিযোগের প্রেক্ষিতে নাসিরনগর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা উভয় পক্ষকে তাহার কার্যালয়ে ডেকে কাগজ পত্র যাচাই বাচাই করে উন পঞ্চাশ শতাংশ জমিতে মানুষ আর কোদালের মাধ্যমে মাঠি কেটে পুকুর তৈরীর নির্দেশ দেন।
কিন্ত পুকুর খননকারীরা অফিসে ইউ,এন,ওর নির্দেশ মেনে গিয়ে রাতের আধারে তা ভঙ্গ করে পুঃনরায় ভেকু দিয়ে আট বিঘা জমিতে পুকুর তৈরীর কাজ শুরু করেন।
সরেজমিন ঘটনাস্থলে গিয়ে ভেকু দিয়ে মাঠি কেটে আট বিঘা জমিতে পুকুর তৈরী করতে দেখা যায।এ সময় পুকুরের মালিক সফিকুল কে ইউএনওর নির্দেশ অমান্য করে পুকুর খননের বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি কোন সদোত্তর দিতে পারেননি।

ঘটনাস্থল থোে বিষয়টি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ফখরুল ইসলামকে অবগত করলে তিনি বলেন,আমি এখনই তহশিলদারকে ঘটনাস্থলে পাটিয়ে ব্যাবস্থা নিচ্ছি।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published.

More News Of This Category