1. darilymukitdak@gmail.com : Mukti TV HD : Mukti TV HD
  2. info@muktitv24.com : muktitv :
  3. banglahost.net@gmail.com : rahad :
শুক্রবার, ২৭ জানুয়ারী ২০২৩, ১০:৩৯ পূর্বাহ্ন

পুলিশের কঠোর হস্তক্ষেপে অপহরণের ১০ দিন পর উদ্ধার স্কুল শিক্ষার্থী, আটক সেই অপহরণকারী।

সোহেল মাহমুদ, (ফরিদপুর )জেলা প্রতিনিধিঃ
  • Update Time : সোমবার, ২৬ জুলাই, ২০২১
  • ৬০৮ Time View

Mukti TV HD

ফরিদপুরের আলফাডাঙ্গা উপজেলায় অষ্টম শ্রেণীর এক ছাত্রী অপহরণের ১০ দিন পর নড়াইল জেলা থেকে উদ্ধার করেছে পুলিশ। শনিবার রাতে নড়াইল জেলার লোহাগড়া উপজেলার গোপিনাথপুর গ্রাম থেকে ওই ছাত্রীকে উদ্ধার ও জিয়া ফকির (৪০) নামে অপহরণকারীকে গ্রেপ্তার করা হয়। এ ঘটনায় অপহরণকারীকে রবিবার আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে এবং ভিকটিমকে মেডিকেল পরীক্ষার জন্য ফরিদপুর বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।
মামলার এজাহার সূত্রে জানা যায়, ফরিদপুরের বোয়ালমারী উপজেলার রূপাপাত গ্রামের ছাত্তার ফকিরের ছেলে জিয়া ফকির হাট বাজারে ও বাড়িতে বাড়িতে ফেরি করে মালামাল বিক্রয় করে। ফেরি করে মালামাল বিক্রির সুবাদে মাঝে মধ্যেই আলফাডাঙ্গা উপজেলার গোপালপুর ইউনিয়নের পাড়াগ্রামের কুদ্দুস মোল্যার বাড়িতে গিয়ে ওই ছাত্রীর সাথে হাসিতামাশা করতো। ওই ছাত্রী বুড়াইচ ইউনিয়নের শিয়ালদী আদর্শ দাখিল মাদ্রাসার অষ্টম শ্রেণীর শিক্ষার্থী।
যেহেতু জিয়া ফকির ওই ছাত্রীর বাবার বয়সী সেইকারণে পরিবারের লোকজন বিষয়গুলো কিছু মনে করতো না। কিন্তু এই হাসিতামাশার মধ্য দিয়ে জিয়া ফকির ছাত্রীকে প্রেমের প্রস্তাব দেয়। এ কথা পরিবারের লোকজনের মধ্যে জানাজানি হলে ফেরিওয়ালা ওই বাড়িতে আসা বন্ধ করে দেয়।
গত ১৫ জুলাই বিকেলে ওই ছাত্রী বাড়ি থেকে ওষুধ কেনার জন্য পায়ে হেঁটে পাশের হেলেঞ্চা বাজারে যাওয়ার পথে টিকরপাড়া ব্রীজের ওপর পৌঁছালে অভিযুক্ত জিয়া ফকির পূর্বপরিকল্পিত ভাবে ওই ছাত্রীকে জোরপূর্বক অপহরণ করে মাইক্রোবাসে তুলে নিয়ে যায়।
ঘটনার দিন সন্ধ্যা হয়ে গেলেও মেয়ে বাড়িতে না ফেরায় অনেক খোঁজাখুঁজি করে বিভিন্ন মাধ্যমে পরিবার জানতে পারে তাকে অপহরণ করা হয়েছে। ওই ছাত্রী মা বাদি হয়ে গত ১৯ জুলাই আলফাডাঙ্গা থানায় অপহরণ মামলা দায়ের করেন। মামলা নম্বর- ০৬।
আলফাডাঙ্গা থানা অফিসার ইনচার্জ মো. ওয়াহিদুজ্জামান বলেন, এক ছাত্রী অপহরণের ঘটনায় জিয়া ফকির নামে এক ব্যক্তিকে আটক করে আদালতের মাধ্যমে ফরিদপুর জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে। আর ওই ছাত্রীকে মেডিকেল পরীক্ষা করে আদালতের মাধ্যমে তার পরিবারের কাছে হস্তান্তর করার প্রস্তুতি চলছে।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published.

More News Of This Category